বিপদে সঙ্গহীন জীবনে করণীয় করোনাভাইরাস নিয়ে মাওলানা উবাইদুর রহমান খান নদভীর কিছু আমল

১. ফজরের নামাজ ওয়াক্ত মতো পড়ে সারাদিন আল্লাহর হেফাজতে থাকা
২ সকাল সন্ধ্যা আয়াতুল কুরসী পড়া
৩.চার কুল সুরা ফাতিহা ও
৪.রোগবালাই এবং বালা মুসিবত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য মসনূন দোয়া ও দান সদকা করা
৫.তওবা ইস্তেগফারের গুরুত্ব দেয়া জুমায় , পাঁচ সাতটি বাক্যের খুতবা,ছোটো সুরার নামাজ ও অতি সংক্ষিপ্ত দোয়া। অন্য দিনের সব নামাজও শুধু ফরজটুকু মসজিদে পড়ে বাকি নামাজ ঘরে পড়া। মহামারীতে মৃত্যু হলেও শহীদী মর্যাদার জন্য দোয়া করা
৬.সাক্ষাৎ ও মুসাফা বর্জন করা।পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ, সব সুন্নত, ইচ্ছেমতো নফল নামাজ ও জরুরী অধ্যয়নে সময় কাটিয়ে দেওয়া। মৃত্যু এলে হাসিমুখে চলে যাওয়া
৭. বাইরে না যাওয়া প্রয়োজন ছাড়া বাইরে না যাওয়া
৮ সব মানুষ হতে আলাদা রাখা নিজেকে এবং মানুষকেও দূরে ও আলাদা থাকতে দেওয়া
৯.ওজু অবস্থায় থাকা সবসময়
১০.সব গুনাহ বর্জন করা ছোটো বড়
১১. ইশার নামাজ পড়ে আল্লাহর দায়িত্বে সারারাত থাকা। মৃত্যু এলে হাসিমুখে চলে যাওয়া
১২. সারাক্ষণ তিলাওয়াত ও আখিরাতের ফিকির এবংআল্লাহর জিকিরে থাকা। খাতিমাহ বিল খায়রের জন্য দোয়া করা
১৩.আগে আগে ঘুমিয়ে শেষরাতে খুব সুন্দর করে ৮/৬/৪ অথবা ২ রাকাত তাহাজ্জুদ পড়া
১৪.খুব আবেগ ও মহব্বত নিয়ে মৃত্যুর মোরাকাবা আর রোনাজারি করা
১৫. অধিক পরিমাণে দুরূদ ও সালাম
১৬. দুনিয়ার মহব্বত ও উলামায়ে সু’ দলের সঙ্গ থেকে আল্লাহর আশ্রয় চাওয়া
১৭.আসন্নকালে জিহাদে শরীক হওয়ার প্রত্যাশা অন্তরে লালন করা
১৮.ইমাম মাহদীর সৈনিক হিসেবে তার সাথে যোগদানের তামান্না দিলে পোষণ ও খাসভাবে দোয়া করা
১৯. দাজ্জালসহ শেষ জামানার সকল ফিতনা তথা জীবনে মরণে প্রতিটি ফিতনা থেকে আল্লাহর নিকট পানাহ চাওয়া
২০. নবী রাসূল ইমাম উলামা মাশায়েখ উস্তাদ মুরব্বি পিতামাতা আত্মীয় পরিজন পাড়াপ্রতিবেশীসহ সকল জীবিত ও মৃত ঈমানদার নারী পুরুষের জন্য সওয়াব রেসানী এবং দোয়া করা। মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদভী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *